বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ ০৬:৪৪:২৮ অপরাহ্ণ

শিরোনাম

 শ্যালিকাকে স্ত্রী ভেবে ১১ মাস সংসার করলেন শাকিল, অতঃপর...     পাচঁ বছরের জন্য নেপালের জলবিদ্যুৎ আমদানি করবে সরকার     দাগনভূঞায় দু’দিনের প্রশিক্ষণ শেষে কৃষকদের মাঝে গাছের চারা ও বীজ বিতরণ     দাগনভূঞায় পাইথন প্রোগ্রামিং বিষয়ক প্রশিক্ষণের উদ্বোধন     দাগনভূঞায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত     ফেনীর সোনাগাজীতে দৈনিক যায়যায়দিনে'র ১৯ তম বছরে পদার্পণ অনুষ্ঠান কেক কেটে উৎযাপন     তারেকের বিরুদ্ধে কিছু বললে সেটা পরের দিন পত্রিকায় পাই না: কাদের     আনারকে হত্যার পর ছবি পাঠানো হয় আ.লীগ নেতার হোয়াটসঅ্যাপে     দেশের ভিক্ষুকদের প্রশিক্ষণ দেবে সরকার: দীপু মনি     ফেনীতে বজ্রপাতে এক মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু   

নেত্রকোনার সেই জঙ্গি আস্তানায় মিলেছে ভয়ংকর বিস্ফোরক

প্রকাশ : জুন ৯, ২০২৪ | সময় : ৯:০৯ অপরাহ্ণ

নেত্রকোনা প্রতিনিধি: নেত্রকোনার সদর উপজেলায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ভয়ংকর রকমের বিস্ফোরক জাতীয় দ্রবসহ অন্যান্য সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশের বিশেষায়িত দল কাউন্টার টেরোরিজম, অ্যান্টিটেরোরিজম ও সোয়াট ইউনিটের বিশেষজ্ঞ দল।

রোববার (৯ জুন) সকালে সদর উপজেলার কাইলাট ভাসাপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের বাড়িতে অভিযান শুরু হয়।

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি শাহ আবিদ হোসেন বলেন, উদ্ধার অভিযান চলমান রয়েছে এবং এখানে ভয়ংকর রকমের বিস্ফোরক জাতীয়দ্রবসহ অন্যান্য সরঞ্জাম রয়েছে।

নেত্রকোনা পুলিশ সুপার ফয়েজ আহমেদ বলেন, আব্দুল মান্নান বাড়ি থেকে জঙ্গি তৎপরতা ও প্রশিক্ষণের নানা সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে। মালামাল জব্দ, সিজার লিস্ট ও বাড়িটা স্ক্যান করা হচ্ছে। আরও কোনো বিস্ফোরক জাতীয়দ্রব কোথাও রাখা আছে কি না সে ব্যাপারে অভিযান অব্যাহত আছে।

স্থানীয় মসজিদের ইমাম বলেন, বাড়িটিতে আরিফ নামে একজন সস্ত্রীক বসবাস করতেন। আরিফের মেয়ে মাদ্রাসায় পড়াশোনা করত। তবে বৃহস্পতিবার (৬ জুন) থেকে মেয়েটি মাদ্রাসায় অনুপস্থিত আছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন বলেন, বাড়িটিতে তিন বছর আগে গিয়েছিলাম। এরপর থেকে আমাকে বা এলাকার কাউকে এর ভেতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।

এর আগে অ্যান্টিটেরোরিজম ইউনিটের বোমা বিশেষজ্ঞ পুলিশ সুপার সানোয়ার হোসেন এ অভিযানের নেতৃত্ব দেন। বিশেষ ওই অভিযানে নেত্রকোনার পুলিশ সুপার মো. ফয়েজ আহমেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ, অ্যান্টিটেরোরিজম ইউনিটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহেদ আহমেদ অংশ নেন।

এখনো পুলিশ পর্যন্ত উদ্ধার অভিযান নিয়ে আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি প্রদান করেনি। তবে বাড়ির বাইরে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে এবং এর আশপাশের বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। উদ্ধার অভিযান নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে।

 

সূত্র: কালবেলা